সুখী হতে চান ?

আজ আপনার সামনে আমি এমন কিছু নীতি বলতে চলেছি যে নীতিগুলি মেনে চললে আপনি সারাজীবনের জন্য দুঃখকে ভুলে যাবেন। মহাত্মা বিদুরের নীতিবাক্য গুলি আজকে আমি আপনার সামনে তুলে ধরবো।

বিদুর 28 টি বিষয়ের কথা বলেছে যেগুলি আপনি জীবন থেকে সরিয়ে দিতে পারলে আপনি সারা জীবন সুখী থাকতে পারবে। প্রথমে বলি তিনি এইভাবে শ্লোকটি ব্যবহার করেছেন, এক কে ব্যবহার করে দুই কে ভালোভাবে বিশ্লেষণ করুন। তিন কে নিজের বশে রাখার জন্য চার কে ভালোভাবে ব্যবহার করা দরকার। পাঁচকে জয় করতে হবে এবং ছয়কে শিখতে হবে। সাতকে বর্জন করে সুখ উপভোগ করুন।

বিদুর প্রথম বলতে ব্রেনকে বুঝিয়েছেন এবং দুই বলতে সঠিক এবং ভুলকে বুঝিয়েছে। তিনি বলেছেন একে ব্যবহার করে দেখা দরকার দুইয়ের মধ্যে সঠিক এবং ভুল কোনটা। অর্থাৎ ব্রেইনকে ব্যবহার করে সঠিক এবং ভুল কোনটি সেটি বিশ্লেষণ করা।

3 কে নিজের বশে রাখার জন্য 4 কে ভালোভাবে ব্যবহার করা দরকার। তিন বলতে তিনি বলতে চেয়েছেন আমাদের চারপাশে তিন ধরনের লোক বর্তমান শত্রু, বন্ধু, নিরলিপ্ত মানুষ। অর্থাৎ নিরপেক্ষ মানুষ যে আপনার কোন আদান-প্রদানে থাকেনা।

এবার চার বলতে তিনি বুঝিয়েছে সাম, দাম, দন্ড, ভেদ। সাম, দাম, দন্ড, ভেদ এদের সম্পর্কে একটু ব্যাখ্যা করা অবশ্যই দরকার। সাম বলতে যে আপনার সামনে রয়েছে তাকে সম্পূর্ণভাবে বোঝানো প্রয়োজন। যদি সে না বোঝে তাহলে দ্বিতীয় জিনিসটি আপনার এপ্লাই করা দরকার সেটি হল দাম। যদি সে না বোঝে তখন তাকে টাকা দেওয়ার প্রয়োজন, যদি তাতেও সে না বোঝে তাহলে তাকে হুমকি দেওয়া প্রয়োজন। তাতেও যদি সে না বোঝে তাহলে তৃতীয় বিষয়টি ব্যবহার করা প্রয়োজন সেটি হল দন্ড, মানে তার খুব বড়োসড়ো একটা লোকসান করানোর দরকার।

এইবার তিনি বলেছেন যে 5 কে জয় করতে হবে এই পাঁচ বলতে তিনি পাঁচটি ইন্দ্রিয়ের কথা বুঝিয়েছেন। পাঁচটি ইন্দ্রিয় বলতে চক্ষু, কর্ণ, নাসিকা, জিহ্বা এবং ত্বক। যে ব্যক্তি এই পাঁচটি জিনিস কে জয় করতে পারে সে সর্বদা সুখী থাকে এটা আবার বলার বিষয় নয়।

6 টি বিষয় সেটা অত্যন্ত জরুরী তার মধ্যে প্রথম হলো সন্ধি।১. আপনার বন্ধুদের থেকে কিভাবে উপকৃত হওয়া যায়। ২. আপনার শত্রুদের কিভাবে ক্ষতি করা যায়। ৩. আপনার কাছে যে সমস্ত দ্রব্য রয়েছে তার থেকে সর্বাধিক কিভাবে উপকার পাওয়া যায়। ৪. আপনি যে পদে রয়েছেন সেখানে থেকে সর্বাধিক ব্যবহার করা দরকার। ৫. শত্রুদের ক্ষমতা কিভাবে কমানো যায়। ৬. যারা উপকার করে তাদেরকে কিভাবে নিজেদের সাথে যুক্ত করা যায়।

এবার তিনি বলেছেন সাতটি বিষয় ত্যাগ করে সম্পূর্ণ অমৃত সুখ লাভ করুন কাম, ক্রোধ, লোভ, মায়া, মদ, হিংসা, চাঞ্চল্য। যে ব্যক্তি এই সাতটি জিনিস কে ত্যাগ করবে সে সারা জীবনের মত সুখী হয়ে যাবে কিন্তু যদি আপনি এই সাতটি বিষয় ত্যাগ করতে না পারেন তাহলে আপনি সারা জীবনেও সুখ পাবেন না। আর এইগুলো ত্যাগ করলে শুধু সুখী নয় আপনি ঐশ্বরিক ক্ষমতা অর্জন করতে পারবেন।

১. কাম বলতে বিপরীত সেক্সের কথা বলা হয়েছে যেমন নারী পুরুষের প্রতি এবং পুরুষ নারীর প্রতি আকর্ষক। এই সেক্স যদিও নিয়ন্ত্রণ করা না যায় তাহলে বিপদ ঘটতে পারে এমনকি মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। ২. ক্রোধ, ক্রোধের কথা বলার তো অপেক্ষাই রাখে না। ক্রোধ বা রাগ মানুষকে অমানুষে পরিণত করতে এক মিনিটও সময় লাগে না। রাগের কারণে মানুষ নিজের গুয়স হারিয়ে ফেলে এবং এই অবস্থায় মানুষ বিপদে ফেলতে পারে। ৩. মায়া হল দুঃখের অপর একটি কারন। মায়া শব্দটির অপর একটি অর্থ হল আশক্তি। এই আশক্তি কোন একটি ব্যক্তির উপর, কোন দ্রব্য বা কোন কার্যের উপর ও হতে পারে। মায়া ত্যাগ করতে পারলেই প্রকৃত সুখ লাভ করা সম্ভব। আমাদের এটা মনে রাখতে হবে কোন কিছুর প্রতি অতিরিক্ত আসক্তি থাকা উচিত নয়। ৪. লোভ মানুষের দুঃখের অপর একটি কারণ।মানুষ লোভের বশবর্তী হয়ে অনেক কিছু ভুল খারাপ কাজ করে ফেলে। যার প্রতি ফলে তার অর্থ চরিত্র আরো অনেক কিছু অনেক ক্ষতি হয়ে যায়। তাই নিজেকে সুখী রাখতে লোভ বর্জন করা অত্যন্ত জরুরি।

৫. মদ মত মানুষের ধ্বংসের প্রধান কারণ তার নজির দেওয়ার দরকার তো নেই অবশ্যই। আপনার চারপাশে অনেক নজির আপনি দেখতে পেয়ে যাবেন। মদ মানুষকে ধ্বংস করে দেয় তাই মদ থেকে এবং মদের প্রকোপ থেকে নিজেকে দূরে রাখা অবশ্যই দরকার। ৬.হিংসা, হিংসা করা দুঃখের আরেকটি কারণ। হিংসা করা অপরের সুখে জ্বলতে থাকা এখান থেকেই দুঃখের আবির্ভাব হয়। আপনার যতটুকু আছে আপনি কতটুকু নিয়েই সুখে থাকুন শান্তিতে থাকুন। আপনি যদি অত্যাধিক লাভ করেন তাহলে আপনি একদমই সুখে থাকতে পারবেন না কিন্তু যদি আপনি আপনার যতটুকু আছে ততটুকু নিয়ে যদি আপনি থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি সুখে থাকতে পারবেন। তাই আমাদের হিংসা পরিত্যাগ করা অত্যন্ত জরুরি।

৭. চঞ্চলতা বা অস্থির হয়ে ওঠা দুঃখের আরেকটি কারণ। তিনি বলতে চেয়েছেন চঞ্চলতা পরিত্যাগ করে স্থির হয়ে গিয়ে কেউ যদি সবকিছু পর্যবেক্ষন করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে তার। কোনো কিছুতেই বিচলিত হওয়ার কারনই তো আসে না। কারণ যদি বিচলিত না হয়ে কোন সিদ্ধান্ত আপনি গ্রহণ করেন তাহলে সর্বদা আপনি সুখী হবেন।

আজ বিদুর নীতি এখানেই শেষ করলাম। যদি আপনি নীতি গুলি মেনে চলেন তাহলে অবশ্যই সুখী হবেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *