সাফল্যের আরেকটি পদক্ষেপ – অনুপ্রেরণামূলক গল্প

সফলতা পাওয়ার জন্য একটি সঠিক বিচারের প্রয়োজন। সফলতা তারাই পায় যারা সফলতার কথা চিন্তা করে যারা অসফলতার কথা চিন্তা করেন। তাদের অসফলতার ছাড়েনা । অসফল ব্যক্তিরা সর্বদা নিজেদের জ্ঞান দ্বারা জগতকে বিচার করে তারা মনে করে তারাই এই পৃথিবীর সব থেকে জ্ঞানী ব্যক্তি । একদিন হেনরি ফোর্ড v8 মোটর তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেন সেখানে আটটি সিলিন্ডার একটি ব্লকের মধ্যে থাকবে, সমস্ত ইঞ্জিনিয়ার অসম্ভব বলে জানিয়ে দেয় কিন্তু তিনি বলেন আপনারা কাজ শুরু করুন এবং যতদিন পর্যন্ত সম্পূর্ণ না হবে ততদিন পর্যন্ত আপনারা কাজ চালিয়ে যান ইঞ্জিনিয়াররা চাকরি বাঁচানোর জন্য কাজ শুরু করেন তাদের কাছে এটাই রাস্তা খোলা ছিল যদি তাদেরকে চাকরি বাঁচাতে হয় তাহলে এই কাজটা সম্পন্ন করতে হবে। ছয় মাস যায় এক বছর যায় কিন্তু কোন ইমপ্রুভমেন্ট পাওয়া যায় না এক বছর পর আবার ইঞ্জিনিয়ারদের ডেকে পাঠান ইঞ্জিনিয়াররা বলেন এটা সম্ভব নয়। ফোর্ড বলেন কাজ চালিয়ে যান কিন্তু কিছুদিনের মধ্যেই একটা মিরাক্কেল ঘটে। ফোর্ড এই কাজ সম্পন্ন করতে পারলেন তার কারণ হলো তার প্রবল ইচ্ছাশক্তি । কোন ব্যক্তি যদি সফলতা চরম শিখরে উপনীত হতে চায় তার প্রবল ইচ্ছা তাকে ধনী ব্যক্তি এবং সফল ব্যক্তি বানাতে সাহায্য করে। মানুষকে সফল হতে গেলে 6 টি মেইন পয়েন্টের ওপর জোর দিতে হবে। ১. আপনার জীবনে কত অর্থের প্রয়োজন তা আপনি নির্ধারন করুন। ২. অর্থ পূরণের জন্য আপনি কি কি দান করতে চান কি কি দিতে চান। ৩. আপনি একটি তারিখ নির্ধারণ করুন যে তারিখে আপনার এই অর্থটি উপার্জন সম্পূর্ণ হবে। ৪. টাকা অর্জনের জন্য আপনি একটি পরিকল্পনা তৈরি করুন এবং অবিলম্বে তার প্রথম পদক্ষেপটি গ্রহণ করুন। ৫. এই চারটি পয়েন্টের ওপরে সংক্ষিপ্ত একটি বাক্য তৈরি করুন এবং সবসময় ওই টি নিজের কাছে রাখুন। ৬. প্রতিদিন সকালে ও রাতে দুবার এই বিবৃতিটি পড়ুন । প্রেফুলিয়ন হিল পরে যে পয়েন্ট টি নিয়ে আলোচনা করেছেন ধনী হওয়ার ক্ষেত্রে সেটি হল আস্থা। আগে আপনি নিজের ওপর আস্থা নিয়ে আসুন এবং পরে পরম পিতার উপর আস্থা নিয়ে আসেন আর তা হল টাকা আরোহণের প্রধান উৎস। এটাই হলো দুর্ভাগ্যকে সৌভাগ্যের পরিবর্তন করে দেওয়ার একমাত্র পথ। নেপোলিয়ন বলেছেন আপনার সব থেকে বড় দুর্ভাগ্য হলো আত্মবিশ্বাসের অভাব। 

সঠিক সিদ্ধান্ত যারা এই দুর্ভাগ্যকে দূরীভূত করতে পারেন। আপনার অবচেতন মস্তিষ্ক বোঝেনা যে আপনি সঠিক বার্তা প্রদান করছেন না ভুল বার্তা প্রদান করছেন। আপনি সৌভাগ্যের বার্তা প্রদান করছেন না দুর্ভাগ্যের বার্তা প্রদান করছেন। সৌভাগ্যের বার্তা যেমন আপনার আত্মবিশ্বাসকে বদলাতে পারে তেমনি ভুল বার্তা প্রদান করলে আপনার মস্তিষ্ক সেই ভাবে কাজ করতে সক্ষম হবে। আপনি যদি মন থেকে ব্যর্থতাকে মেনে নেয় তাহলে আপনি পরাজিত নয়তো পৃথিবীর কেউ আপনাকে পরাজয় স্বীকার করাতে পারবেনা। জীবনযুদ্ধে ক্ষমতাবান বুদ্ধিমানরা জয় লাভ করে না , যারা ভাবে যে আমি জয়ী হব শেষ পর্যন্ত তারাই জয়লাভ করে। ধনবান হওয়ার ক্ষেত্রে নেপোলিয়ন হিল আর একটি যে পয়েন্টের কথা আলোচনা করেছেন সেটি হল আত্মবিশ্লেষণ। অবচেতন মন হলো একটি বাগানের মত। যদি আপনি সেই বাগানে সুন্দর ফুলের বাগান তৈরি করেন বাগানটি সুন্দর এবং মোহময় হয়ে উঠবে কিন্তু আপনি যদি সেখানে ফুলের বাগান তৈরি করতে না পারেন তাহলে সেই মনের বাগানে দুঃখ-যন্ত্রণা ইত্যাদির আগাছায় ভরে যাবে। তাই আপনার মনকে সুন্দর সুগঠিত করে তৈরি করার জন্য সত ইচ্ছা সুন্দর বদ বুদ্ধি থাকলে প্রবেশ করান। আমাদের জানতে হবে শুভবোধ বুদ্ধি কিভাবে প্রবেশ করানো যায়। নেপোলিয়ন হিল এর জন্য তিনটি পদক্ষেপের কথা বলেছেন। আপনি কোন নির্জন জায়গায় যান সেখানে গিয়ে চিৎকার করে আপনি আপনার ধনরাশির কথা বলুন আর প্রতিজ্ঞা করুন আপনি অনুভব করুন আপনার হাতের মধ্যে আপনার সমস্ত ধনরাশি এক সাথে রয়েছে। এবং তাকে আপনি স্পর্শ করতে পারছেন । আপনিও ধনু রাশির পাওয়ার জন্য কি কি স্যাক্রিফাইস করবেন লিখেছেন সেই সমস্ত বাক্যগুলি পরে দেখুন । যা লিখে রেখেছেন বারবার বলতে থাকুন। আপনি এই বক্তব্যগুলি এমন একটি জায়গায় লিখে রাখুন যাতে ঘুম থেকে ওঠার পর একবার এবং ঘুমোতে যাওয়ার আগে একবার পরতে পারেন। আর যদি একবার অবচেতন মনকে বিশ্বাস করিয়ে দেন ওই ধনরাশি আরো ধন আরহনের কৌশল বলে দেবে।


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *