সমস্যার সমাধান

আমাদের সবার জীবনে কিছু না কিছু সমস্যা আছে । কেউ সেটা সমাধানের চেষ্টা করে আর কেউ সেই সমস্যা থেকে পালাতে শুরু করে। 

আচ্ছা একবার ভেবে দেখুন তো সত্যিই কি সমস্যা থেকে দূরে পালালে তার সমাধান মিলবে নাকি তার সামনা সামনি দাঁড়িয়ে তার মোকাবেলা করলে সেই সমস্যাটা সমাধান হবে। 

আমাদের সবার জীবনে কিছু সমস্যা সাধারণত থাকে, সেটা হয়তো আমরা সবাই জানি ।  

আজকে সেই সমস্যাগুলো নিয়ে আপনাদের সাথে একটু আলোচনা করি:- 

১. টাকা :- ভাবলেই রাতের ঘুম উড়ে যায় মানুষ কত বোকা হয় তা বলে বোঝানো যাবে না । কারণ তারা সারাক্ষন টাকা টাকা করে আচ্ছা যদি আপনি টাকা টাকা না করে নিজের কাজে মন দেন এবং খুব দায়িত্ব সহকারে আপনার অফিসের কাজটি করেন তাহলেই তো আপনার সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে । 

যদি আপনি মন দিয়ে কাজ করেন অফিসের বস আপনার বেতন দ্বিগুণ বাড়িয়ে দিতে পারে। অথবা আপনার কিছু কিছু সমস্যার সমাধান সে নিজেই খুশি হয়ে করে দিতে পারে। 

এবং আপনি অনেক সুযোগ-সুবিধা পেতে পারেন তাই নিজের কর্ম জীবনকে ভালবাসুন। কর্ম জীবনে যত উন্নতি করবেন আপনার টাকার সমস্যার সমাধান হবে কারণ নিজের কাজকে যে ভালবাসে তার জীবনের কোনো সমস্যাই থাকে না। 

বড় বড় মনীষী ঋষিরা এই একই কথা বলে চলেছে, যে কোন কাজেই ছোট হয় না আপনি যে কাজই করুন না কেন সেই কাজটি কে নিজের মন দিয়ে করে দেখুন তার থেকে আপনি সাফল্য পাবেনই পাবেন । যদি আপনি কোনো হাতের কাজ করেন বা কোন অফিসে কাজ করেন তাহলে সেই কাজটি কে সম্মান করুন মর্যাদা দিন দেখবেন আপনার কাছে কোন সমস্যাই সমস্যা বলে মনে হবে না। কারন আপনার কাছে যে অস্ত্রটি রয়েছে সেটি হলো আপনার মনের শক্তি এবং আপনার কাজ টি । আপনি আপনার কর্ম জীবনে নিজেকে খুশি রাখুন মনোযোগ দিয়ে কাজ করে যান দেখবেন আপনি ঠিক একদিন না একদিন সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছেন এবং সেই সঠিক পথে কোন রকম সমস্যা আপনার সামনে এসে দাঁড়াবে না এবং যদি কোন সমস্যা এসে দাঁড়ায় তার মোকাবেলা করার ক্ষমতা আপনার থাকবে।

২. সময় :- প্রথমত আপনাকে আপনার সমস্ত কাজকর্ম ও পরিবারের সাথে কাটানো সময়গুলো ভাগ করে নিতে হবে । আপনি রোজ সকালে উঠে অফিস জান তো আপনি একটু সকাল করে উঠতে শুরু করুন তাহলে নিজের পরিবারকে সময় দিতে পারবেন এবং সময়মতো অফিসে যেতে পারবে। তারপর অফিসে সমস্ত কাজ সম্পন্ন করে সময় মত বাড়ি ফিরে আপনার পরিবারের সাথে একটু বসুন, তাদের সারা দিনের কথা জানুন, তাদের অভিযোগ – আবদার গুলো শুনুন, আর এগুলো সমাধান করুন, দেখবেন আপনাকে তে আপনার পরিবারের সব সময় হাসি খুশি থাকবে এমনকি তাদের সাথে সময় কাটিয়ে আপনার ভালো লাগবে। আপনি চাইলে আপনার পরিবারের সাথে নিজের সমস্যার কথা বলতে পারেন, দেখবেন তাদের থেকে ভালো পরামর্শ আপনাকে কেউই দিতে পারবে না। 

আপনাকে আজ আমি একজন মহান ব্যক্তির কিছু কথা বলব যার কিছু বাণী আপনাকে জানাব, যেটি আপনাকে সমস্যা থেকে লড়তে সাহায্য করবে।

আমি সেই 1887 সালের কথা আপনাকে বলব যখন স্বামী বিবেকানন্দ বেরিয়েছিল সারা দেশ পদভ্রমণের জন্য। 

বারানসি দেখি রাস্তায় স্বামী বিবেকানন্দ প্রেমানন্দ কে সঙ্গে নিয়ে ভ্রমণ করছে ঠিক সেই সময়ে কিছু বাঁদর তাদের তাড়া করে। 

স্বামীজি কিছু বুঝতে না পেরে প্রেমানন্দ কে সঙ্গে নিয়ে পড়ানো শেষ এই রাস্তা দিয়ে দৌড়াতে শুরু করলো একবার এগুলি দেখে সেগুলি একবার সেগুলি থেকে এগুলি । কিন্তু কিছুতেই সে এই বাঁদরগুলো তাদের পিছু ছাড়ছিল না , তারা যত দৌড়ে যাচ্ছে বাঁদরগুলো তাদেরকে আরো কত তারা করে যাচ্ছে। 

ঠিক ওই সময় হঠাৎ পেছনদিকে একজন বলে উঠল-আপনি দাঁড়িয়ে যান, স্বামীজি হঠাৎ পেছন ঘুরে তাকালেন এবং হতভম্ব হয়ে দাঁড়িয়ে পরলেন। দেখলেন বাদরটি ও দাঁড়িয়ে গেছে। 

এই গল্পটি থেকে আমরা এটি বুঝতে পারলাম যে সমস্যা থেকে কখনো পালাতে নেই, আপনি যত সমস্যার থেকে পালাবেন ততই সমস্যা আপনার পেছনে দৌড়াবে। 

তাই থামুন এবং ঘুরে দাঁড়ান সমস্যার সামনা-সামনি দাঁড়িয়ে সেই সমস্যার সাথে মোকাবেলা করুন দেখবেন আপনি যখন সেই সমস্যাকে ভয় না পেয়ে সেই সমস্যার সাথে লড়াই করবেন তখন সেই সমস্যাটা আপনার জীবন থেকে সারা জীবনের মতো চলে যাবে।

স্বামীজি ও তার নিজের বাড়িতে এই একই প্রসঙ্গ তুলে ধরেছেন যে যতই সমস্যা আসুক না কেন যতই বিপদ আসুক না কেন বিপদ কে এড়িয়ে যদি ছোটা যায় বিপদের থেকে যদি এগিয়ে যাও তাহলে কিন্তু বিপদ আমাদের পেছনে ছাড়বে না।

বাংলা এত সুন্দর কবিতার লাইন আমি এর সঙ্গে আপনাকে বলে রাখি – “ যার ভয়ে ভীত তুমি সে অন্যায়, সে ভীরু তোমাচে, যখনি জাগিবে তুমি তখনি সে পলাইবে ধেয়ে।। ”

অর্থাৎ বিপদ আসলে বিপদের মোকাবেলা করা উচিত বিপদের সামনের রুখে দাঁড়ানো উচিত। বিপদের ভয় যদি আপনি সেটিকে এড়িয়ে চলে যান , যদি সে সমস্যাটাকে পেছনে ফেলে আপনি এগিয়ে যেতে চান তাহলে সেটি আপনার ভুল ধারণা হবে, কারণ সেই বিপদ টিও আপনার পেছন পেছন আপনার সাথে দৌড়ে ঠিক আপনাকে ধরে ফেলবে তাই সেই বিপদ টিকে না এড়িয়ে তার সামনা সামনি দাঁড়িয়ে সেটিকে সমাধান করুন। 

আপনার জীবন থেকে সহজ করুন সরল করুন এবং সুন্দরভাবে জীবন যাপন করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *