শরীরের ভাষা

মানুষ চেনা খুব কঠিন কাজ কিন্তু আমি আমি আজ আপনাকে এমন কিছু টিপস শেয়ার করব। যা ব্যবহার করে আপনি সহজেই চিনে নিতে পারবেন আপনার কাছের মানুষটিকে। আপনার কাছের মানুষটির আকৃতি-প্রকৃতি, ব্যবহার, আপনার সাথে কথা বলে সে স্যাটিসফাই কিনা তাও আপনি দেখে নিতে পারবেন। এই জিনিসগুলো সম্পূর্ণ বিজ্ঞানসম্মত ব্যাখ্যা নিয়ে আমি আপনাকে আজকে বিষয় টি জানাব। 

মানুষের বডি ল্যাঙ্গুয়েজ বা দেহের ভাষা অনেক কাছু বলে যায়। মানুষ তার মুখের কথা লুকিয়ে রাখতে পারে কিন্তু গোপন করে রাখতে পারবেনা তার বডি ল্যাঙ্গুয়েজ। 

১. প্রথমেই আমি যেই অঙ্গটির কথা বলব তাহলো আই বা চোখ। চোখ হলো মনের আয়না। অনেক কিছু মুখে বলা যায় না বা লুকিয়ে রাখা যায় কিন্তু সব গোপনতা কে ফাঁস করে দেয় এই চোখ। চোখের ভাষা বোঝা অত্যন্ত জরুরি। কথা বলার সময় আপনার সামনের মানুষটি কে দেখুন, যদি আপনার সাথে কথা বলার সময় আপনার কথা শোনার সময় তার চোখের দৃষ্টি আপনার দিকে স্থির হয়ে যায় এবং খুব কম পলক ফেলছে এরকম দেখতে পান, চোখের কালো অংশটি একেবারে ভেসে রয়েছে এই অবস্থার সৃষ্টি হয় যদি তাহলে বুঝবেন তাহলে বুঝবেন আপনার কথা সে মনোযোগ দিয়ে শুনছে এবং আপনার সাথে কথা বলে সে স্যাটিসফাই।

যদি আপনার সাথে কথা বলার সময় সে বারবার অন্য দিকে তাকায় অথবা তার চোখের পলক বারবার পরছে সে এদিক ওদিক তাকাচ্ছে তাহলে বুঝবেন সে আপনার সাথে কথা বলে স্যাটিসফাই নয় অথবা সে বিরক্ত অনুভব করছে।

অপরদিকে আপনার সাথে কথা বলার সময় আপনার সামনের মানুষটি যদি ডানদিকের উপরের দিকে তাকিয়ে থাকে তাহলে বুঝবেন সে কিছু পরিকল্পনা করছে। এমনও হতে পারে যে সে কোন কিছুর মিথ্যে কাহিনী সাজাচ্ছে। বা কথা বলতে বলতে আপনার সামনের জন যদি বারবার নিচের দিকে তাকায় তাহলে বুঝবেন সে আপনার সাথে কথা বলতে খুবই ভয় পাচ্ছে বা সে আপনার সাথে কথা বলে স্যাটিসফাই হচ্ছে না।

এমন যদি দেখেন যে আপনার সামনের মানুষটি আপনার সাথে কথা বলার সময় আপনার দিকে এক পলকে তাকিয়ে রয়েছে আর তার চোখের দৃষ্টি টি খুবই অদ্ভুত জনক তখনই বুঝে নেবেন আপনি যে আপনাকে সে সন্দেহ করছে।

যদি দেখেন যে ওই ব্যক্তি আপনার সাথে কথা বলতে বলতে বারবার অন্য দিকে তাকাচ্ছে বা অন্য দিকে তাকিয়ে রয়েছে তখন বুঝবেন যে সে আপনার সাথে কথা বলতে চাইছে না বা আপনি যে কথাটা কে বলছেন সেই বিষয় টি তার পছন্দ হচ্ছে না। তখন আপনার উচিত চুপ হয়ে যাওয়া বা প্রসঙ্গটি পরিবর্তন করে অন্য কোন বিষয়ে কথা বলে তাকে আনন্দ দেওয়া। যাতে আপনার সামনের মানুষটির অ্যাটেনশন আপনার দিকে ফিরে আসে। 

২. এবার যেই বিষয়টি নিয়ে বলবো সেটি হলো চোখের পাতা চোখের পাতা কিন্তু অনেক কিছু বলে দেয় যদি দেখেন আপনার সামনের মানুষটি চোখের পালক স্বাভাবিক অপেক্ষায় বেশি বন্ধ হচ্ছে তখন বুঝবেন সে কোন বিষয় চিন্তা করছে। আর যদি দেখেন তার চোখের পলক টি স্বাভাবিকের থেকে খুব কম পড়ছে তাহলে বুঝবেন আপনার কাছের মানুষটি আপনার থেকে কিছু গোপন করার চেষ্টা করছে। 

৩. এবার আপনাকে যে বিষয়টি নিয়ে আমি বলব সেটিও হল ঠোঁট হ্যাঁ ঠোঁট ও কিন্তু অনেক কিছু বলে কথা বলার সময় যদি আপনি ঠোঁট টি পর্যবেক্ষণ করেন তাহলে আপনি ওই মানুষটির বিষয়ে অনেক কিছু জেনে নিতে পারেন।

আপনার সামনের মানুষটি যদি আপনার সাথে কথা বলার সময় তার ঠোঁট দুটিকে বারবার ভেতরের দিকে নিয়ে যায় এবং চেপে ধরে তখন বুঝবেন সে আপনার সাথে কথা বলার জন্য রাজি নয়। যদি নিচের দিকের ঠোঁটটি দাঁত দ্বারা চেপে ধরে তাহলে বুঝবেন যে আপনার সামনের মানুষটি আপনার থেকে কিছু গোপন করতে চাইছে এবং ওই ব্যক্তি কোন কিছু চিন্তা করছে।

যদি দেখেন বারবার মুখে হাত দিচ্ছে ঠোটে হাত দিচ্ছে তাহলে বুঝবেন সে তার ইমোশনকে লুকাতে চাইছে। এই সমস্ত বিষয়গুলি যদি আপনি পর্যবেক্ষণ করেন তাহলে এটি একটি মানুষকে চেনার জন্য যথেষ্ট। আর তাকে চিনলে তার মত হয়েই কথা বললে তাহলে সে আপনার কথা মনোযোগ দিয়ে শুনবে এবং আপনার সাথে কথা বলতে আগ্রহী ও দেখাবে। 

৪. এবার বলবো হাত নিয়ে। হাত মানুষের অনেক ভাষা বলে দেয়, যদি দেখেন আপনার সাথে কথা বলার সময় আপনার সামনের মানুষটি তার হাত দুটোকে বুকের সামনে ফোল্ড করে রেখেছে তাহলে বুঝবেন সে ডিফেন্সিভ মুডে রয়েছে।

যদি দেখেন আপনার সাথে কথা বলার সময় আপনার সামনের মানুষটি তার হাতটি মুঠো করে রেখেছে তাহলে বুঝবেন সে আপনার প্রতি খুবই রেগে রয়েছে আপনার মতামতের ওপর তার কোনো ইচ্ছে বা আস্থা নেই। অপরদিকে আপনার সামনের ব্যক্তিটি আপনার সাথে কথা বলার সময় তার হাতের আঙ্গুলগুলোকে বারবার নাড়াচাড়া করছে তাহলে বুঝবেন সে আপনার সাথে কথা বলতে বলতে অন্য কিছুর পরিকল্পনা করছে, নয়তো ফ্রাস্ট্রেটেড হয়ে রয়েছে নতুবা খুব রেগে রয়েছে। অথবা কোন স্টুডেন্ট যদি পেছনের দিকে হাতটা রেখে তার টিচারের সাথে কথা বলে তখন বুঝতে হবে সেই স্টুডেন্ট টিচার কে সম্মান করে। আমাদের পা কিন্তু অনেক সময় দেহের ভাষা বুঝিয়ে দেয় আমরা যদি ভালভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারি তাহলে আমরা অনেক কিছুই বুঝতে পারব।

ধরুন আপনি কোনো পার্টিতে গেছেন বা কোন মিটিংয়ে গেছেন বা কোন অনুষ্ঠানে গেছেন তখন যদি আপনার সামনের ব্যক্তিটি তার পা দুটি V সেফ করে বসে বা দাঁড়িয়ে থাকে তাহলে আপনাকে বুঝতে হবে যে সে সকলের সাথে আলাপ করতে আগ্রহী, অপরদিকে তার পায়ের পাতা গুলো যদি I সেফে থাকে তাহলে বুঝতে হবে যে সে খুবই কনফিডেন্ট বা তার সাথে কেউ আলাপ করুক বা না করুক তাতে তার কিছু যায় আসে না।

কিন্তু যদি পায়ের পাতা A সেফে থাকে তাহলে আপনাকে বুঝতে হবে যে সে কারো সাথে আলাপ করতে চায় না সে নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকতে চায় এবং সে কারো সাথে কথা বলতে আগ্রহী নয়।

৫. এবার যে বিষয়টি নিয়ে বলবো সেটি হল বসার বিষয়ে একটি মানুষের বসার কায়দা বা ভঙ্গিমা দেখে বোঝা যায় যে সেই মানুষটি কিরকম ধরনের। যদি দেখেন কোন মানুষ তার দুটি হাঁটুর ওপরে দুটি হাত রেখে কথা বলছে তাহলে বুঝবেন ওই ব্যক্তিটি ডমিনেটিং প্রকৃতির মানুষ। নিজের নীতিতে চলতে পছন্দ করে। এবং কোন ব্যক্তি যদি নিজের পা 90 ডিগ্রী অ্যাঙ্গেলে ফোল্ড করে বসে আপনার সাথে কথা বলে তাহলে বুঝবেন যে ওই ব্যক্তিটি খুবই নিজের প্রতি খুবই কনফিডেন্ট।

যদি একটি পায়ের উপর অপর একটি পাত্রে রেখে বসে কথা বলে তাহলে বুঝবেন এই ব্যক্তিটি খুবই মিশুক এবং সবার সথে ক্লোজ রেলেশনশিপ করতে খুবই আগ্রহী।

কোন মানুষের সাথে কথা বলার জন্য আমাদের অবশ্যই এই পয়েন্টগুলি জেনে রাখা দরকার কারণ মানুষের সাথে কথা বলতে গেলে তার সহানুভূতিটা ও দরকার যদি সে আমার সাথে কথা বলতে ইচ্ছুক না হয় তাহলে কখনই উচিত না তাকে আমার বিরক্ত করা। 


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *