মানুষ সত্য তাহার উপরে কিছু নাহি

আজ আমি আপনাদের একটি শিক্ষামূলক গল্প শোনাবো যা হয়তো আপনার ধারনাকে বদলে দেবে।

এই যে আমরা হিন্দু মুসলমান খ্রিস্টান দের নিয়ে দাঙ্গা-হাঙ্গামা ছোট বড় জাত নিয়ে নিজেদের মধ্যে তর্কবিতর্ক করে থাকি লড়াই করে থাকি , কত প্রাণ আমরা আমাদের মধ্যে নষ্ট করে ফেলি। 

এগুলো কি করা সত্যিই জরুরি আমরা কি এতোটাই মূর্খ হয়ে গেছি আমাদের শিক্ষা দীক্ষা কি এতটাই ছোট হয়ে গেছে যে আমরা এখন এই জাতপাত নিয়ে লড়াই করে যাই তর্ক করে যাই। 

কেনো করি আমরা এমন? আসুন না আমরা সবাই বলি হিংসা নয় শান্তি চাই। ছোট বড় জাত বলে কিছু নেই। এই উঁচু-নিচু ভেদাভেদ বলে কিছু নেই সবার উপরে যা রয়েছে তা হলো মানুষ। “মানুষ সত্য তাহার উপরে কিছু নয়”। 

স্বামী বিবেকানন্দ একদিন আগ্রা থেকে বৃন্দাবন যাচ্ছিলেন , অনেক পুরনো এই গল্পটি কিন্তু এই গল্পটি আমাদের বুঝতে সাহায্য করে আমাদের কে শিক্ষা দিয়ে যায় যে আমরা সকলেই মানুষ মানুষের উপরে কোন জাতি হয়না, কোন ধর্ম হয় না, মানুষের উপরে কোন ভেদাভেদ হয়না। 

সালটা হলো 1988 খ্রিস্টাব্দে রাস্তার ধারে বসে একজন গাঁজা খাচ্ছেন। স্বামীজী তাকে দেখলেন এবং তার সামনে বসে পড়লেন, স্বামীজি তাঁর কাছে গাঁজা টা চাইলেন এবং বললেন তুমি আমাকে একটু গাঁজাটা দাও আমিও একটু গাঁজা ভক্ষণ করে দেখি। কিন্তু যিনি গাঁজা খাচ্ছিল সেই ভদ্রলোক ওই গাজাটি স্বামীজীকে দিতে চাইলেন না। তিনি বললেন আপনি তো সন্ন্যাসী আপনি অনেক উঁচু লোক আমি একজন সাধারন মানুষ আমি একটি ছোট জাতের মানুষ , আপনাকে আমি কি করে এই উচ্ছিষ্ট জিনিসটি দিতে পারি। তখন স্বামীজি বললেন উঁচু-নিচু বলে কিছু নেই তখন ওই ভদ্রলোককে বললেন যে আমি আপনাকে ছিমিল টি দিতে পারব না কারণ আমি অন্য জাতের লোক অন্য নিচু জাতের লোক। তখন স্বামীজী উঠে দাঁড়িয়ে বললেন যে আমরা সবাই ঈশ্বরের সন্তান , আমরা সবাই একই জায়গা থেকে এসেছি, আমাদের রক্ত এক, আমাদের জাতি এক, আমরা মানব জাতি। এবং স্বামীজি জোর করে তার থেকে গাজাটি নিয়ে নেন এবং খান এবং তাকে বলেন “দেখো আমার কিন্তু জাত যায়নি” । 

যদি আমরা এই গল্পটা থেকে একটুও শিক্ষা নিতে পারি তাহলে আমরা আমাদের সম্পর্ক আমাদের পরিবেশের ভাতৃত্ববোধ অনেক উন্নত করতে পারব। 

সাধারণত আমরা আমাদের জন্ম ছেড়ে দিয়ে আমাদের মনুষত্ব ছেড়ে দিয়ে আমরা নিজেদের মধ্যে শুধু ধর্ম নিয়ে জাতি নিয়ে বিভেদ সৃষ্টি করি। কিন্তু না “ সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে কিছু নাহি ” । যদি আপনি এই ধারণা নিয়ে আপনার বিজনেস আপনার পরিবার এবং আপনার সমাজ এই সমস্ত জায়গায় বেঁচে থাকতে পারেন দেখবেন আপনার সামনে কোনদিনও কোন সমস্যা আসবে না।

সত্যি বলতে এই দুনিয়াটা একটা আয়নার মতো আপনি মানুষকে যেভাবে দেখবেন আপনি মানুষের সাথে যেই ভাবে আচরণ করবেন ঠিক সেই প্রতিফল আপনি পাবেন। 


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *