মন ছুয়ে যাওয়া কাহিনী

বড় হতে গেলে শুধুমাত্র টাকা পয়সা লাগে না, সম্মান লাগেনা লাগে প্রকৃত একজন ভালো মানুষ, লাগে দানশীলতা। প্রকৃত মানুষের প্রকৃত মন তাকে বড় করে দেয়। তাকে করে দেয় মৃত্যুঞ্জয়ী যেমন করেছিলেন Sir APJ Abdul Kalam কে । তাকে আমরা আজও মনে রেখেছি কিন্তু কেন ? কেন তিনি আমাদের মাথার ওপরে রয়েছেন ? কেন হয়ে রয়েছেন আমাদের মনিকোঠায় মনি ? উনার একটি সুন্দর কাহিনী আজ আপনার সামনে আমি বলব। 

সালটা ছিল 2002, ডক্টর এপিজে আবদুল কালাম ছিলেন রাষ্ট্রপতি, তখন রমজান মাস চলছে ভারতের রাষ্ট্রপতির জন্য একটা নিয়মিত রেওয়াজ রয়েছে, সেটি হলো তিনি ইফতার পার্টির আয়োজন করবেন। 

একদিন ডক্টর কালাম তার সচিব মিস্টার নায়েরকে বললেন কেন তিনি তার একটি পার্টির আয়োজন করবেন ? কারণ যদি কোন পার্টি দেওয়া হয় যদি কোনো অনুষ্ঠান করা হয় তাহলে সেখানকার অতিথিরা সব সময় ভালো খাবার খাওয়াতে অভ্যস্ত। তিনি নায়েরের কাছে জানতে চাইলে এই পার্টি আয়োজন করতে মোট কত টাকা খরচা হবে ? তখন মিস্টার নায়ের তাকে বললেন যে প্রায় 22 লাখলাখ টাকার মতো হবে। তখন তিনি সঙ্গে সঙ্গে এতিমখানায় যে সমস্ত খাদ্য, অর্থ, বস্ত্র ছিল তা দিয়ে তিনি দরিদ্র গরিব যারা তাদেরকে দান করবেন এই সিদ্ধান্ত করলেন। 

রাষ্ট্রপতি ভবনের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি টিম শুরু করে দিল এই বিষয়ে কাজ করা। কিন্তু ডক্টর কালাম এক্ষেত্রে কোনো রকম ভূমিকা পালন করেননি। এতিমখানা বাছাইয়ের পর কালাম স্যার নায়ারকে ডাকলেন আর নিজে থেকেই এক লাখ টাকার একটি চেক লিখে দিলেন। 

তিনি তার ব্যক্তিগত সঞ্চয়ের অর্থ থেকে একটি ভাগ এই দরিদ্র গরিব মানুষদের কে লিখে দিয়েছিলেন যাতে তাদের কিছুটা সাহায্য হয়। কিন্তু তিনি নায়ারকে ডাকলেন এবং বললেন যে তিনি যে নিজের অর্থের এক ভাগ দরিদ্র গরিব মানুষদের মধ্যে দিয়ে দিয়েছেন এই কথা জানো ডক্টর কালাম এবং নায়ের ছাড়া কেউ না জানে। 

মিস্টার নায়ের এতটাই আঘাত পেয়েছিলেন তার মৃত্যুর পরবর্তীকালে তিনি বিষয়টি প্রকাশ করেছিলেন যে স্যার এপিজে আবদুল কালাম তার রোজগারের এক অংশ গরিব দরিদ্র মানুষদের মধ্যে দান করেছেন। 

মিস্টার নায়ার এপিজে আবদুল কালাম কে বলেছিলেন যে স্যার আমি এক্ষুনি বাইরে যাব এবং সবাইকে জানাবো সবার জানা উচিত যে আপনি কত বড় মনের মানুষ। এবং বলব যেখানে এমন একজন মানুষ রয়েছে যে তার ভাগের অর্থ নয় তার ব্যক্তিগত অর্থ গরিব মানুষদের কে দিয়ে দিচ্ছেন। 

এপিজে আব্দুল কালাম এর মত একজন সৎ ব্যক্তি একজন উদার মনের ব্যক্তি সত্যিই আমি খুব কম দেখেছি। উনি সত্যিই একজন আমাদের স্বপ্নের মানুষ, উনি প্রেরণা আমাদের। 

তার সেই বিখ্যাত উক্তি গুলি আজও প্রত্যেকটা মানুষের মধ্যে প্রেরণা জাগায় প্রত্যেকটা মানুষকে সাহস দেয় জীবনের পথে লড়াই করতে জীবনের যুদ্ধে জিততে জীবনের পথে এগিয়ে যেতে। উনি সত্যিই এমন একজন মানুষ ছিলেন যার প্রত্যেকটা কথা একদম অক্ষরে অক্ষরে সত্যি। 

যদি ডক্টর এপিজে আবদুল কালামের বানী গুলি প্রতিদিন সকালে আপনি মনে করেন এবং মনে মনে বলার চেষ্টা করেন তাহলে আপনার পুরো দিনটি খুব সুন্দর কাটবে। কারণ উনি এমন একজন ব্যক্তি যিনি সব হতাশাপূর্ণ মানুষদের মনের মধ্যে আশার আলো জ্বালিয়ে যায়। 

তাইতো আমাদের সকলের উচিত ডক্টর এপিজে আবদুল কালামের বানী গুলি মেনে চলা এবং নিজের জীবনের পথে নিজের লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে চলা। 

এপিজে আবদুল কালামের বিখ্যাত সেই উক্তি “ আমি সেরা আমি পড়তে পারি, সৃষ্টিকর্তা সবসময় আমার সঙ্গে রয়েছে, আমি জয়ী, আজকের দিনটা আমার দিন । ”

জীবনের পথে এগিয়ে যেতে লাগে একজন বন্ধু একজন সাথী তাই এপিজে আবদুল কালামের এই বাণী গুলিকে আমরা নিজেদের বন্ধু হিসেবে মেনে নিতে পারি এবং এগিয়ে যেতে পারি আমাদের স্বপ্নের দিকে আমাদের লক্ষ্যের দিকে তাহলে আমরা কোনদিনও থেমে যাব না হেরে যাব না। 


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *