বুদ্ধি দিয়ে সঠিক বিচার করুন

সেই প্রকৃত স্ত্রী হওয়ার উপযুক্ত যে সূচিপূর্ন, যে কর্মে পারদর্শী যে প্রকৃত শুদ্ধ যে পতিকে প্রসন্ন করতে পারে এবং যে সত্যবাদী।

মহান রাজনীতিবিদ অর্থশাস্ত্রের রচয়িতা চাণক্য বা কৌটিল্যের বাণী গুলি আজ আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। 

চার সত্য মাতৃগর্ভেই নিশ্চিত হয়ে যায় :- 

১. সে কতদিন জীবন ধারণ করবে?

২. সে কি প্রকার কর্ম করবে? 

৩. সে কত অর্থের মালিক হবে ? 

৪. তার মৃত্যু কবে হবে?

 সৎ ও পবিত্র মানুষের সংস্পর্শ থেকে পুত্র মিত্র আত্মীয়বর্গ দূরে থাকে কিন্তু যে এই সাধু ব্যক্তিদের অনুসরণ করে তারই একমাত্র ভক্তি জাগরিত হয় এবং তারই সম্পন্ন পরিবার ধন্য হয়। আপনার শরীর সতেজ অবস্থায় আত্ম সৎকার করা প্রয়োজন কারণ মৃত্যুর পর মানুষের কোন কিছু করার ক্ষমতা থাকেনা। 

বিদ্যা অর্জন ও জ্ঞান আরোহন কামধেনুর সমান। যা সবসময় অমৃতফল প্রদান করতে পারে। বিদেশে ও দুঃসময় মায়ের মত রক্ষা করে। তাই বিদ্যাকে গুপ্তধন বলা হয়। হাজারটা নিগুন শ্রমিকের জায়গায় একটি গুণবান শ্রমিক ই যথেষ্ট কারণ রাতের অন্ধকার দূরীকরণে হাজারটি তারার দরকার হয়না একটি চন্দ্রমায় যথেষ্ট।

একজন মূর্খ পুত্র অপেক্ষা সদ্যোজাত মৃত পুত্র অনেক শ্রেয়। কারণ ওই মৃত পুত্র কেবল মাত্র একবছর যন্ত্রণা দেয় আর একটি মূর্খ পুত্র সারা জীবন পরিবারকে যন্ত্রণা দিয়ে যায়। যেখানে মানুষের বসবাসের অসুবিধা হয় এইরূপ :- ছোট গ্রামে জীবন ধারন করা, হীন নীচু ব্যক্তির নিকট চাকরি করা, অস্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণ করা, কলহ সৃষ্টিকারী স্ত্রীর সাথে বসবাস করা, মূর্খ পুত্রের অভিভাবক হওয়া, বিধবা কন্যার পিতা হওয়ার এই ৬টি বিষয় মানুষকে বিনা আগুনে জ্বালিয়ে দিতে পারে। 

যে গালি দুগ্ধ দান করতে পারে না, যে সন্তান প্রসবে অক্ষম, যে কোনো কাজে লাগে না। তেমনি যে পুত্র বিদ্যান এবং ভগবানের প্রতি আসক্ত নয় তার পরিবারের কোনো ভূমিকা থাকে না। 

যখন বিপদ উপস্থিত হয় তখন কেবল মাত্র তিনজন এগিয়ে আসে :- 

১. পুত্র বা কন্যা। 

২. স্ত্রী 

৩. ভগবানের প্রকৃত ভক্ত।

পুত্র বিহীন ঘর অর্থহীন, লক্ষ্যবিহীন দিশা অর্থহীন, মূর্খ ব্যক্তির উপস্থিতি অর্থহীন এবং নির্ধন ব্যক্তির সবকিছুই অর্থহীন। জ্ঞান ও আধ্যাত্মিক শক্তি প্রয়োগ না করলে বিষাক্ত হয়। কোন মূর্খ ব্যক্তির উপস্থিতিতে সামাজিক কর্ম বিষাক্ত হয়, পেট খারাপ ব্যক্তির খাদ্য গ্রহণ বিষাক্ত হয়। 

যার কাছে ধর্ম ও দয়া নেই তাকে দূর করো, যে গুরুর কাছে আধ্যাত্মিক শক্তি নেই তাকে দূর করো, যে স্ত্রীর কাছে সর্বদা ঘৃণা বিরাজ করে তাকে দূর করো, যে আত্মীয়র কাছে সর্বদা হিংসা বিরাজ করে তাকে দূর করো। 

যে সবসময় ভ্রমণ করে সে তাড়াতাড়ি বৃদ্ধে পরিনত হয়, এক স্থানে বেঁধে রাখা ঘোড়া বেঁধে পরিণত হয়। সঙ্গমে অক্ষমতা, স্ত্রীকে বৃদ্ধা পরিণত করে। রোদ্রে কাপুর রাখলে তা ব্যবহার করা যায় না। 

এই কথাগুলি সবসময় মনে রাখবে :- 

১. সঠিক সময় 

২. সঠিক বন্ধু 

৩. সঠিক ঠিকানা 

৪. কাজ করার সঠিক জ্ঞান। 

৫. খরচ করার সঠিক রাস্তা।

৬. লক্ষ্য পূরণের সঠিক মন্ত্র। 

ভগবানের দৃষ্টি সর্বদা বিরাজমান প্রতিটি ভক্তের হৃদয়ে তার অধিষ্ঠান । অল্প জ্ঞানী মানুষ মূর্তির মধ্যে ভগবান কে দেখে কিন্তু যারা দূরদৃষ্টি সম্পন্ন হয় তারা জানে ভগবান সর্বব্যাপী বিরাজমান । 

আপনার জীবনের চলার পথে চাণক্যর এই নীতি গুলি অনেক সাত দেবে। যদি আপনি জীবনে সাফল্য পেতে চান যদি আপনি সঠিক জীবন টি নির্বাচন করতে চান জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে চান তাহলে সঠিক সিদ্ধান্ত নেবে এবং সাহায্য করবে আপনাকে এই চাণক্য নীতি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *