চাণক্য বা কৌটিল্যের বাণী

চাণক্য এবং কৌটিল্যের কিছু মহান বাণী আজকে আমি আপনাদের সামনে তুলে ধরব। 

চাণক্য বা কৌটিল্য বলেছিলেন যে এই নীতি পালন করবে সে একজন মহান কর্তব্যের পরিপালক হবে। তার বোধগম্য হবে – কোন বিষয়ে গ্রহণ করা উচিত আর কোন বিষয়ে গ্রহণ করা উচিত না তা সে ভালো করে জানবে। সে ভালো এবং খারাপ এর পার্থক্য বুঝতে পারবে। 

তিনি বলেছেন আমি এমন এক পুস্তক প্রদান করিতেছি যা মানুষকে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাহায্য করবে। তিনি বলেছিলেন যদি কোন মূর্খ ব্যক্তি কে উপদেশ দান করেন এবং কোন দুষ্টু পত্নি কে পালন করেন। বা কোন দুঃখী ব্যক্তির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বানিয়ে নেন তাহলে পন্ডিত ধনবান ব্যক্তির কষ্ট উপস্থিতি হয়। 

তিনি বলেছিলেন দুষ্টু স্ত্রী মিথ্যেবাদী বন্ধু এবং বদমাশ চাকরের সাথে বসবাস করা একটি বিষধর সাপের সাথে বসবাস করা সমান। 

তিনি বলেছিলেন ভবিষ্যতে কোনো বিপদ থেকে নিজেকে বাঁচাতে গেলে ধনসম্পত্তি আয়ত্ত করা প্রয়োজন এবং সেই ধনসম্পত্তি দিয়ে নিজের পরিবারকে নিজের স্ত্রীকে রক্ষা করা উচিত। কিন্তু যদি নিজের সুরক্ষার কথা আসে তাহলে নিজের ধন ও স্ত্রী দুই কেই ত্যাগ করা উচিত। 

ভবিষ্যতের জন্য ধন্য সম্পত্তি আয়ত্ত করা দরকার কখনও ভাবা উচিত না এটা যে ধনী ব্যক্তিদের বিপদ আসে না। আর যখন বিপদ আসে তখন সঞ্চিত সম্পত্তিও শেষ হয়ে যায়। 

সেই সমস্ত দেশে বসবাস করা উচিত না যেখানে উপার্জন করার কোন উপায় নেই যেখানে আপনাকে কেউ ভালোবাসে না এবং যেখানে আপনার কোনো সম্মান নেই যেখানে আপনার কোন বন্ধু নেই এবং যেখানে আপনার জ্ঞান অর্জনের কোন উপায় নেই। 

তিনি বলেছেন যেখানে একজন ধনবান ব্যক্তি, একজন ব্রাহ্মণ যে বৈদিক শাস্ত্র জানে, একজন শাসক, একটি নদী এবং একজন চিকিৎসক নেই আপনি ভুলেও সেই জায়গাতে বসবাস করবেন না। 

একজন ব্যক্তির সেখানে যাওয়া উচিত নয় যেখানে রোজগারের কোন পথ নেই, যেখানে লোকেদের কোন কিছুতে ভয় নেই, যেখানে লোকেদের কোন কিছুতে লজ্জা নেই, যেখানে মানুষের কোন বুদ্ধি নেই এবং যেখানকার মানুষরা কখনো দান ধ্যান করে না। 

একজন চাকর এর পরীক্ষা তখনই নেয়া উচিত যখন সে নিজের কর্তব্য পালন করে না, আত্মীয় চেনা যায় বিপদ উপস্থিত হলে, বন্ধুর পরীক্ষা নেওয়া উচিত খারাপ সময় উপস্থিত হলে , স্ত্রী পরীক্ষা নেওয়া উচিত খারাপ সময় উপস্থিত হলে। একজন প্রকৃত বন্ধু চেনা যায় যখন দুর্ঘটনা উপস্থিত হত, যখন প্রয়োজন হত, দুঃভিখ উপস্থিত হলে, যুদ্ধকালে বা রাজদরবারে বিচারকালে এবং যখন শ্মশানে যেতে হয় তখন যে পাশে থাকে সাথে যায় সেই প্রকৃত বন্ধু। 

চাণক্য বলেছেন কোন ব্যক্তি যদি কোন অনিশ্চিত বস্তুকে পাওয়ার জন্য নিজের শেষ সম্বলটুকুও ত্যাগ করে তখন সে সম্ভাব্য বস্তুটি তো পায় না এবং নিজের শেষ সম্বল টি ও হারিয়ে ফেলে। একজন বিদ্বান ব্যক্তর সর্বদা একটি সৎ পরিবারে অবিবাহিত মহিলাকে বিবাহ করা উচিত। যদি সেই মহিলা কুৎসিত হয় তাও বিবাহ করা উচিত কিন্তু যদি অসৎ পরিবারে সুন্দরী মহিলা থাকে তাহলেও তাকে বিবাহ করা উচিত না। 

এই পাঁচটি বিষয়কে কখনো বিশ্বাস করতে নেই :- 

১. নদী

২. যার কাছে অস্ত্র আছে 

৩. শিংযুক্ত পশু

৪. মহিলা 

৫. রাজার লোকজন

তিনি বলেছেন যদি বিষের মধ্যে অমৃত থাকে তা পান করে নেওয়া উচিত, যদি নর্দমাতে সোনা পড়ে থাকে তা তুলে নেওয়া উচিত এবং যদি শত্রুর মধ্যে কোন ভাল গুণ থাকে তা গ্রহণ করে নেওয়া উচিত। 

তিনি বলেছেন নিচু জাতি, হীন, দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করলে সর্বদা জ্ঞান অর্জন করা উচিত। যদি কোন দুষ্টু মহিলা ও সৎ পরামর্শ দেয় তাহলে তা গ্রহণ করে নেওয়া উচিত।

তিনি বলেছেন মহিলাদের মধ্যে ক্ষুধা থাকে দুগুণ, লজ্জা থাকে চারগুন এবং সাহস থাকে ছয়গুণ কিন্তু কাম শক্তি পুরুষদের অপেক্ষা মহিলাদের আটগুণ বেশি থাকে। 

আশাকরি চাণক্যের এই নীতি বলি আপনি মেনে চলবেন যদি আপনার জীবনে সাফল্য পেতে চান এবং আপনি প্রতিষ্ঠিত হতে চান তাহলে চাণক্যর নীতি গুলি অবশ্যই মেনে চলা উচিত। 


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *