কোন মানুষ থেকে সর্বদা দূরে থাকা উচিত ?

আমাদের ভবিষ্যৎ কেমন হবে তা অনেকটাই নির্ভর করে আমাদের চার পাশের মানুষ কেমন, তাদের চরিত্র, চিন্তাভাবনা, আচার আচরণ এর উপর। আর তাই আমাদেরও সতর্ক হওয়া উচিত।
মানুষের মধ্যেই রয়েছে হিংসা, ভালোবাসা, প্রেম কিংবা রাগ-ক্ষোভ। আমাদের চারপাশে কয়েক ধরণের মানুষ দেখা যায় যারা কোনো না কোনো ভাবে আমাদের মানসিক শক্তি ক্ষয় করে। তাদের সঙ্গে বেশিক্ষন সময় কাটালে তাদের প্রভাব আমাদের ওপর পড়তে থাকে।

কিছু মানুষ এমন রয়েছে যাদের সঙ্গে থাকলে আপনার জীবন হয়ে উঠতে পারে বিষাক্ত।
তাই আমাদের কিছু মানুষদের থেকে দূরে থাকা উচিত।

আত্মপ্রেমী মানুষ:- নিজেকে ভালোবাসা উচিত এটা ভুল না কিন্তু অতিরিক্ত আত্মপ্রেমী ঠিক না। অতিরিক্ত আত্মপ্রেমীদের আশপাশে থাকা মানুষদের গুনতে চরম মূল্য।
এই ধরণের মানুষেরা প্রথমে বেশ মনোহর মনে হবে। তবে তারা ধান্দাবাজ, একগুয়ে, সহজেই অন্যকে দোষ দেয় এবং নাজেহাল করে দেয়।যদি কাছের কোনো মানুষের মাঝে এই ধরনের বৈশিষ্ট লক্ষ্য করেন তবে উচিত হবে তাদের থেকে নিজেকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে রেখে সম্পর্ক চালিয়ে যাওয়া।

পরশ্রীকাতর :- যারা অন্যের ভালো দেখে কাতর হয়ে পড়েদুঃখ পায়। এই ধরণের মনোভাব হিংসা ও বিদ্বেষাত্মক আচরণ তৈরী করে। বিশেষজ্ঞদের মতে সবচেয়ে বড় স্ট্রেস হলো পরশ্রীকাতরতা। এই ধরণের মানুষের সাথে বেশিক্ষণ সময় কাটালে তাদের ভাবধারা আপনার মধ্যেও সঞ্চারিত হতে থাকবে।
শুধু তাই নয় আপনার কোনো এচিভমেন্টের সময় শত্রুতে পরিণত হতে বিন্দুমাত্র পিছুপা হবে না। এরা নিজেরা সফল হতে চায় না তার কাছের মানুষটাকেও সফল করতে চায় না। তাই তাদের থেকে নিজেকে দূরে রাখো।

নির্দয় মানুষ :- যদি কোনো মানুষ খুব সূক্ষ্ম ভাবে তোমার সাথে হিংস্রতা দেখায় তা সে ফিজিক্যালি হোক বা মেন্টালি , তাদের থেকে সর্বদা নিজেদের বাঁচিয়ে রাখা ভালো মনে রাখবে এরা সর্বদা মানুষকে যন্ত্রনা দিয়ে আনন্দ পায়। এই ধরণের মানুষ প্রথমে মিষ্টতা দেখালেও এরা বদমেজাজী হয়। বদমেজাজী মানুষেরা নিজের রাগ সর্বদা অন্যের ওপর ঝাড়তে থাকে , তারা অন্যকে দোষীর কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে রাখে। এইসব মানুষদের দূরে রাখা উচিত নইলে তারা আমাদের চিন্তাভাবনার অনেকাংশ দখল করে আমাদের এক বদ্ধ কারাগারে নিক্ষেপ করবে যেখান থেকে মানসিক ভাবে কখনো তুমি বেরিয়ে আসতে পারবে না। তাই এইসব মানুষদের দূরে রাখা উচিত।

আবেগ নিয়ে খেলা:- মানুষের সহানুভূতি পাওয়ার জন্য যারা আবেগ নিয়ে খেলে, যাকে বলা যেতে পারে আবেগের পরজীবী, তাদের থেকে দূরে থাকাই ভালো। এই ধরনের মানুষ নিজেকে খুবই ভঙ্গুরভাবে উপস্থাপন করে অন্যের সহানুভূতি যোগাড় করবে, বিভিন্ন দুঃখের কাহিনী নিজের অসহায়তার কাহিনী শুনিয়ে সহানুভূতি যোগাড় করবে। তারপর নিজের কাজ হয়ে গেলে সেই মানুষকে অগ্রাহ্য করবে।

সবজান্তা :- আমাদের চারপাশে সবজান্তা মানুষ দেখা যায়। কিন্তু এদের আমরা চিনবো কি করে?
যারা সব বিষয়ে ইন্টারেস্ট দেখায় এবং শুধু কথাবার্তায় অন্যকে ডুবিয়ে রাখে ,যাদের কাছে সব ধরণের উত্তর তৈরী থাকে, এক কোথায় তারা সব জানে। এর ফলে বিচার বিশ্লেষণ না করেই এমন কিছু কথা বলে ফেলে , যা অন্যকে নিরুৎসাহিত করে তোলে। তারা তাদের ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে চায় না ,তারা নিজেদেরকেই সঠিক মনে করে, এরা কোনো মতামতকে গুরুত্ব দেয় না। জানুক বা নাই জানুক নিজেদের মতকেই প্রাধান্য দেয় । এদের নির্দিষ্ট কোনো লক্ষ্য থাকে না। মনে রেখো এরা কখনো কখনো কথার মাধ্যমে তোমায় অপদস্ত করতেও পারে।
এদের সাথে থাকলে তুমি নিজে ডিপ্রেশনের শিকার হয়ে পড়বে, ও নিজের লক্ষে পৌঁছতে পারবে না।

উদাসীন মানুষ:- সম্পর্কে একজন মানুষ বেশি দিয়ে যাবে – বিষয়টা খুবই সাধারণ। তবে একজন মানুষের জন্য সেটা অনেক সময় খুবই চাপের বিষয় হয়ে যায় যখন তাকে মানসিক ভরের বেশিরভাগটাই টানতে হয়। এই এক পক্ষীয় অবস্থার পড়ে সেই মানুষটার মনে হতে থাকে, ‘আমি খালি দিয়েই যাচ্ছি দিয়েই যাচ্ছি’। অন্যদিকে অপর পক্ষ সেই বিষয়টা খেয়াল না করে উদাসিনতার পরিচয় দিয়ে যেতে থাকে।

এই ধরনের সম্পর্ক শেষ পর্যন্ত হৃদয় ভাঙার কারণ হয়। আর যে ব্যক্তি দিয়েই যায় সে এক পর্যায়ে আত্মভিমানে ভুগতে থাকে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *