এপিজে আবদুল কালামের কিছু বাণী

প্রতিদিন সকালে উঠে একটি কথা বলবেন নিজের মনে মনে, সেটি হলো :- আমি সেরা, আমি করতে পারি সবকিছু , সৃষ্টিকর্তার সবসময় আমার সঙ্গে রয়েছে , আমি জয়ী হবোই হবো, আজকের দিনটা আমার । 

আপনাকে আজ এমন একটি মানুষের কথা বলব যার আদর্শগুলো যদি আপনি সঠিক মাত্রায় মেনে চলেন তাহলে আপনি জীবনে বড় হবে নি হবে। 

শিক্ষা ও কর্মজীবনের যদি কেউ সম্পূর্ণ অনুপ্রেরণা যোগাতে সক্ষম হয় তিনি হলেন “আবুল পাকির জয়নুল আবেদিন আব্দুল কালাম” । 

দরিদ্রতার অন্ধকার প্রচেষ্টাকে হারাতে পারে না। তাকে আর একবার প্রমাণ করে দেখিয়ে দিলেন তিনি। রামেশ্বরমে দরিদ্র এক মাঝির সন্তান থেকে ভারতের 11 তম রাষ্ট্রপতি । 

খবরের কাগজের বিক্রেতা থেকে ভারতের মিসাইল ম্যান। 

সামান্য মধ্য মানের ছাত্র থেকে পদ্মভূষণ পদ্মবিভূষণ পুরস্কার জয়। 

এই অবিস্মরনীয় সাফল্যের কারণ কি ছিল তা তিনি তাঁর আত্মজীবনীমূলক বই গুলির মধ্যে উল্লেখ করেছেন । সেখান থেকে কিছু অবিস্মরনীয় বাণী নিয়ে আজ আমি আপনাদের জানাব। 

তিনি বলেছেন :- 

১. “স্বপ্ন সেটা নয় যেটা তুমি ঘুমিয়ে দেখো , স্বপ্ন সেটা যার কারণে তুমি ঘুমাতে পারো না।” ২. “সূর্যের মত দীপ্তমান হতে গেলে প্রথমে সূর্যের মত পুড়তে হবে। ”

৩. “তোমাকে তোমার কাজকে ভালবাসতে হবে যেদিন তুমি তোমার কাজকে ভালবাসতে শিখে যাবে সেদিন দেখবে তোমার কাছে কোনো কিছুই কঠিন বলে থাকবে না। ”

৪. “ যারা হৃদয় দিয়ে কাজ করতে পারে না তাদের অর্জন হয় অন্তঃসারশূন্য, সমস্ত সাফল্য হয় উদ্দেশ্য হীন তিক্ততা পূর্ণ। ”

৫. “ ভিন্নভাবে চিন্তা করা ও উদযাপনের সাহস থাকতে হবে । ” 

৬. “অসম্ভব জিনিস আবিষ্কারের সাহস দেখাতে হবে । ” 

৭. “সমস্ত সমস্যা কে জয় করে সফল হতে হবে সমস্ত মহান গুণাবলী দ্বারা চালিত করতে হবে নিজেকে। ”

জীবন হলো একটি কঠিন খেলা । ব্যক্তি হিসেবে মৌলিক অধিকার ধরে রাখার মাধ্যমে জয়ী হতে পারবে। একবার আকাশের দিকে তাকিয়ে দেখো তুমি একা নও গোটা বিশ্ব তোমার সাথে রয়েছে তোমার বন্ধু হয়ে। যারা স্বপ্ন দেখে যারা কাজ করে শুধুমাত্র তাদের প্রতিষ্ঠানের দেওয়ার জন্য মহাবিশ্ব সর্বদা চক্রান্তে লিপ্ত হয়। উৎকর্ষ একটি চলমান প্রক্রিয়া এটি কোন আবশ্যিক ঘটনা নয়। 

আমি বিশ্বাস করি যদি কোন দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হয় সেখানে তিনজনকে অবশ্যই দরকার হয় – ১. বাবা

                                  ২. মা 

                                  ৩. শিক্ষক

সমস্যা এলে বিপদে কখনো সেটা কে এড়িয়ে যাবে না তার মুখোমুখি হয়ে দাঁড়াবে। “একটা কথা মনে রাখবে সমস্যা বিহীন জয় কোন আনন্দ নেই” । আর সব সমস্যারই সমাধান আছে। 

আমার যতদূর অভিজ্ঞতা আছে সেই অভিজ্ঞতা থেকে আমি চারটি বিষয় আপনাদের সামনে তুলে ধরতে চাই। 

১. জীবনের লক্ষ্য নির্ধারণ করা 

২. জ্ঞান অর্জন করা । 

৩. কঠিন সমস্যায় পিছনে নাহাটা

৪. কোন কাজে সফলতা ও ব্যর্থতা এই দুটোকেই নেতৃত্ব দেওয়া।

সমস্যাকে কখনো তোমার নিজের ওপরে চেপে বসতে দেবে না , তুমি দেখো লক্ষ্য করো যে তুমি স্বপ্নের কতদূর কাছে আসলে। সাহস হারাবেনা লক্ষ্য রেখো জীবনের একটি দিনও যেন তোমার ব্যর্থ না যায় নিজেকে লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাও। যদি তোমায় কেউ বলে যে তুমি পারো না বা তুমি পারবেনা তাহলে তাদেরকে দেখিয়ে দাও । 

আপনাকে সুদর্শন হতে হবে না কিন্তু আপনি আপনার হাত তাদের দিকে বাড়িয়ে দিন যাদের সত্যিই আপনাকে অনেক প্রয়োজন। মহান মানুষেরা ধর্মকে মিত্রতা স্থাপনের কাজে ব্যবহার করে। আর সংকীর্ণ মানুষেরা ধর্মকে যুদ্ধের অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করে। সেই ভালো শিক্ষার্থী হয় যে প্রশ্ন করতে জানে তাই প্রশ্ন করার সুযোগ দিন। যুব সমাজকে চাকরির পার্থী না হয়ে চাকরি দাতা হওয়া প্রয়োজন।নিজের কাছে নেগেটিভ এক্সপেরিয়েন্স বলে কিছুই রাখবেন না। যদি আমরা কাউকে ভালোবেসে থাকি তাহলে শত ব্যস্ততার মধ্যেও আমরা সেই কাজটি করার সময় ঠিক খুঁজে বার করব। ঈশ্বর তাদেরকে সাহায্য করে যারা কঠোর পরিশ্রমই হয়। সমস্যা উপস্থিত না হলে সফলতার প্রকৃত আনন্দ উপলব্ধি করা যায় না। 

একটা কথা মনে রাখবে প্রথম জয়ের পর কখনো বিশ্রাম নেওয়া উচিত নয় যদি তুমি দ্বিতীয় জয়ে পরাজিত হও তাহলে লোকে বলবে তুমি প্রথম জয়টি ভাগ্যের জোরে পেয়েছিলে।

যদি তুমি হেরে যাও জীবনের পথে বা তুমি ফেল করো তাহলে ভেঙে পড়ো না, কারণ ফেল শব্দের প্রথম অর্থ হলো “FIRST ATTEMPT IN SUCCESS”, অর্থাৎ শিক্ষার প্রথম ধাপ । 

ছোট থেকে যা তুমি ভাববে যেটা নিয়ে তুই বেশীক্ষন চিন্তা করবে যেটা তুমি সবসময় নিজের মধ্যে তৈরি করবে তুমি বড় হও এবং ভবিষ্যতেও সেটি নিয়েই ব্যস্ত হয়ে উঠবে।

“একটি ভালো বই হাজার বন্ধুর সমান আর একটি ভালো বন্ধু একটি লাইব্রেরির সমান।” 

দেশের সবথেকে বুদ্ধিমান মানুষেরা লাস্ট বেঞ্চ থেকে উঠে আসে। তুমি তোমার ভবিষ্যতকে বদলাতে পারবে না কিন্তু তুমি তোমার অভ্যাসকে বদলাতে পারবে, আর এই অভ্যাস ই তোমার ভবিষ্যতকে বদলে দিতে পারবে। 

সফলতার কাহিনী তো সবাই পরে কিন্তু তুমি ব্যর্থতার কাহিনী পরে সেখান থেকে তুমি সফলতা রাস্তা খুঁজে পাবে। 

যদি তোমার সমস্ত কিছু শেষ হয়ে যায় তাহলে ভেঙে পড়ো না মনে রাখবেন “END ” শব্দের আরেকটি অর্থ রয়েছে “EFFORT NEVER DIES” অর্থাৎ প্রচেষ্টার মৃত্যু নেই। 


Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *